1. [email protected] : amicritas :
  2. [email protected] : newsdhaka :
মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ০৪:০০ অপরাহ্ন

স্ত্রীকে খুন করে সড়ক দুর্ঘটনার নাটক মিশুর

নিউজ ঢাকা প্রতিবেদক
  • শেষ আপডেট: শনিবার, ৩ এপ্রিল, ২০২১

বাসায় স্ত্রীকে হত্যার পর প্রাইভেটকারে তুলে রাজধানীর হাতিরঝিলে এসে দুর্ঘটনার নাটক করেছেন সাকিবুল আলম মিশু। আজ শনিবার (৩ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে হাতিরঝিলের আমবাগান নামকস্থানে প্রাচীরে মিশুর প্রাইভেটকার ধাক্কা মারে। এতে মিশু সামান্য আহত হন। মিশু নিজেই গাড়ি চালাচ্ছিলেন।
হাসনা হেনা ঝিলিককে (২৫) হত্যার অভিযোগে স্বামী মিশু, শ্বশুর জাহাঙ্গীর আলম ও শাশুড়ি সাইদা আলমকে গ্রেপ্তার করেছে গুলশান থানা পুলিশ। এই তিনজনসহ ৫জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেছেন নিহতের মা তহমিনা হোসেন আসমা। অপর ২ আসামি হলেন, মিশুর ভাই ফাহিম আলম ও ফাহিমের স্ত্রী টুকটুক আলম।
নিহত ঝিলিকের মা তহমিনা হোসেন আসমা বলেন, ‌’ আমরা গরিব। মিশু ধনী ঘরের ছেলে। গুলশানে বাড়ি। বড় ব্যবসায়ী তার বাবা। ধনাঢ্য হওয়ায় মিশুর বাবা-মা,ভাই বোন আমার মেয়েকে মেনে নিতে পারেনি। গরিব বলে গালমন্দ করত। গরিব হওয়ায় ওরা আমার মেয়েকে মেরে ফেলেছে।’
হাতিরঝিল থানার ওসি আবদুর রশিদ জানান, সকাল সাড়ে ৯টার দিকে হাতিরঝিল থেকে মিশু ও তার স্ত্রীকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকের কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। এ সময় জরুরি বিভাগের চিকিৎসক জানান, ঝিলিক মারা গেছে। তবে দুর্ঘটনায় নয়, তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। এর পর মিশুকে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়।
মিশুর বাসা গুলশান ২ নম্বরের ৩৬নম্বর সড়কে। বাসার সিসি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা গেছে, চার ব্যক্তি ওই নারীর হাত-পা ধরে ঝুলিয়ে বাসার সিড়ি দিয়ে নামছে।
নিহত ঝিলিকের মা তহমিনা জানান, ২০১৮ সালের শুরুতে মিশুর সঙ্গে ঝিলিকের পরিচয় হয় ফেসবুকে। এর পর ভালোলাগা,ভালোাবাসা। ঝিলিককে বিয়ের জন্য মিশু তার বাবা-মাকে জানান। কিন্ত তারা ধনাঢ্য পরিবার হওয়ায় ঝিলিকের সঙ্গে বিয়ে দিতে রাজী ছিলেন না প্রথমে। কিন্ত মিশুর জেদের কাছে হেরে যান তারা। ২০১৮ সালের সেপ্টম্বরে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় তাদের। কিন্তু পরবর্তীতে তারা ঝিলিককে মেনে নিতে পারেননি। ‌নানাভাবে নির্যাতন শুরু করা হয় ঝিলিকের ওপর। বাসা থেকে বের করেও দেয়া হয় তাকে। আট মাস বয়সী এক সন্তান রয়েছে তাদের।
তহিমনার অভিযোগ- মিশুরা ঝিলিককে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে সড়ক দুর্ঘটনার নাটক সাজিয়েছে। এই হত্যার বিচার চান তিনি।
পুুলিশের গুলশান জোনের এসি রফিকুল ইসলাম বলেন, হাতিরঝিল থানা থেকে মিশুকে গুলশান থানায় নেয়া হয়। মিশু,তার বাবা জাহাঙ্গীর, মা সাইদা, ভাই ফাহিম ও ফাহিমের স্ত্রী টুকটুককে আসামি করে হত্যা মামলা হয়েছে। বাবা-মাসহ মিশুকে ওই মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

অনুগ্রহ করে পোস্টটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটেগরির অন্যান্য পোস্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *